৬০-এ পা রাখছেন আলীরাজ

সিরাজগঞ্জের ধানবান্দির ছেলে তিনি। ঢাকায় এসে হয়ে যান ডাব্লু আনোয়ার। নায়ক রাজ রাজ্জাক নির্দেশিত সৎ ভাই চলচ্চিত্রে অভিনয়ে এসে ডাব্লু আনোয়ার থেকে হয়ে যান আলীরাজ। সাদা-কালো এই চলচ্চিত্রে অভিনয় করেই আলীরাজ হয়ে যান দর্শকের, প্রযোজক পরিচালকের একজন প্রিয় একজন শিল্পী। এরপর আর নাটকপাড়ায় দেখা যায়নি আলীরাজকে। চলচ্চিত্রে সেই সময় তিনি ব্যস্ত হয়ে যান। আর তাই নায়ক আলীরাজকে দেখা যায় টানা এক শ’র বেশি চলচ্চিত্রে। তারপর চরিত্রাভিনেতা হিসেবে আরো অভিনয় করেছেন সাড়ে তিন শ’ চলচ্চিত্রে।

একজন অভিনেতার জীবনে চার শ’র বেশি চলচ্চিত্রে অভিনয় করা সহজ কোনো বিষয় নয়। বিষয়টিকে অভিনয়জীবনের অনেক বড় অর্জন হিসেবেই মনে করেন আলীরাজ। বিটিভিতে আয়না ধারাবাহিকে ভাঙনের শব্দশুনি নাটকে প্রথম অভিনয় করেন তিনি। নাটকটির রচয়িতা ছিলেন সেলিম আল দীন এবং প্রযোজক ছিলেন নাসিরউদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু। তবে বিটিভির ধারাবাহিক ঢাকায় থাকি ছিল টিভি নাটকে তার অভিনয়জীবনের সেরা কাজ। এতে তিনি মাহমুদ চরিত্রে অভিনয় করে বেশ আলোচিত হয়েছিলেন।

১৫ মার্চ গুণী এ অভিনেতার জন্মদিন। তিনি ৬০ বছরে পা রাখছেন। নিজের এমন বিশেষ দিনে তেমন কোনো বিশেষ আয়োজন করছেন না আলীরাজ। তবে স্ত্রী, দুই সন্তানকে নিয়ে তিনি দিনটি ঘরোয়াভাবে উদযাপন করবেন বলে জানান।

নিজের অভিনয়জীবন আলীরাজ বলেন, আজ একটি কথা বিশেষভাবে বলতে চাই যে, এ দেশের প্রখ্যাত সিনেমাটোগ্রাফার আনোয়ার হোসেন বুলু আমার বন্ধু। সে যদি আমাকে সিরাজগঞ্জ থেকে ঢাকায় না নিয়ে আসত তাহলে আমি সেই গ্রামেই পড়ে থাকতাম। কোনো দিনই ডাব্লু আনোয়ার হতে পারতাম না। আবার আমার গুরু নায়ক রাজ রাজ্জাক যদি চলচ্চিত্রে না নিয়ে আসতেন তাহলে আমি আলীরাজ হতে পারতাম না। তাই আল্লাহর অসীম রহমতে এবং এ দু’জন মানুষের সহযোগিতায় আমি আজকের অবস্থানে আসতে পেরেছি। আর ২১৫ মার্চ ৬০ বছরে পা দিচ্ছি।