লালপুরে সেবা দিচ্ছে গরীবের অ্যাম্বুলেন্স

সম্প্রতি লালপুর উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের মুর্মূষ রোগীদের ৫০ টাকার বিনিয়ে দ্রুত সেবা প্রদান ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে পৌছে দেওয়ার লক্ষে ২০১৫-১৬অর্থ বছরের দ্বিতীয় লোকাল গভর্ন্যান্স সাপোর্ট প্রজেক্ট (এলজিএসপি-২) প্রকল্পের অর্থায়নে প্রতিটি অ্যাম্বুলেন্সে ২লাখ ১০হাজার টাকা ব্যয় করে রিচার্জেবল ইজিবাইক দিয়ে রোগী বহনের উপযোগী করে তৈরী এসব অ্যাম্বুলেন্স নাটোরের লালপুর উপজেলার ১০ ইউনিয়নের ১ টি করে কমিউনিটি অ্যাম্বুলেন্স ও চালককে মোবাইল ফোন প্রদান করা হয়। যা ইতিমধ্যে জনগনে ব্যাপক সারা জাগিয়েছে।

উপজেলা প্রত্যান্ত অঞ্চলের প্রসুতি ও শিশু দের দ্রুত সেবা প্রদানের লক্ষে তৈরী কমিউনিটি  এ্যাম্বুলেন্স সেবা খুব দ্রুত মানুষের দোর গোরায় পৌছে যাওয়ায় দিনরাত ২৪ ঘন্টা উপজেলার ওয়ালিয়া সহ বিভিন্ন এলাকায় গরিবের অ্যাম্বুলেন্স হিসেবে মানুষের মনে ঠাই পেয়েছে । রোগীদের যে কোন প্রয়েজেনে শুধু এ্যাম্বুলেন্স চালকের মোবাইলে কল করলেই হাজির হয়ে যাচ্ছে এই সকল গরিবের অ্যাম্বুলেন্স গুলি। যা দিন রাত ২৪ ঘন্টা সার্ভিস দিচ্ছে ।

এই ব্যাপারে ওয়ালিয়া ইউনিয়নের অ্যাম্বুলেন্স চালক প্রদীপ কুমার জানান, প্রত্যন্ত অঞ্চলের রোগীদের সেবা প্রদান করাই আমার একমাত্র লক্ষ।

এদিকে প্রত্যন্ত ওয়ালিয়ার অঞ্চলের সেবা ভোগকারী শহিদুল, চম্পা বেগম, লাবনীজানায়, আমরা আমাদের বিপদে প্রয়োজনের সময় রাত দিন যখন এ্যাম্বুলেন্স চালকের মোবাইলে কল করি তখনি আমাদের দোরগোড়াই পৌঁছে যায় এই গরীবের এ্যাম্বুলেন্স । আমরা ধন্যবাদ জানাই সরকারকে গরীবের জন্য এমন মহত কাজ করার জন্য। তারা যেনো এই ধরনের উন্নয়ন মুখি আরো কাজ আগামীদিনে করে এটাই আমাদের চাওয়া পাওয়া।

এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার নজরুল ইসলাম জানান, আমার লালপুর উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের প্রসুতি, শিশু ও দু:স্থ রোগীদের দ্রুত হাসপাতালে পৌছানোর জন্য এবং রোগীদের এ্যাম্বুলেন্সের ও মাইক্রোর নিকট ধরনা ধরতে হচ্ছে এবং দু:স্থ রোগীরা  মাইক্রো ও এ্যাম্বুলেন্স এর ভারা না থাকাই সময় মত হাসপাতালে রোগী প্রয়োজনীয় সেবা নিতে আসতে না পারাই অনেক রোগী চিকিৎসা অভাবে মারা যেত । এই সকল দিক থেকে ২০১৫-১৬ অর্থবছরের দ্বিতীয় লোকাল গভর্ন্যান্স সাপোর্ট প্রজেক্ট (এলজিএসপি-২) প্রকল্পের আওতায় ২ লক্ষ ১০ হাজার টাকা ব্যয় করে রিচার্জেবল ইজিবাইক দিয়ে রোগী বহনের উপযোগী করে তৈরি কর হয় কমিউনিটি অ্যাম্বুলেন্স যা খুব সল্প সময়েই এলাকায় সরা জাগিয়েছে।

তবে এই ধরণের উদ্ভোবনী ও উন্নয়ন মুখি প্রকল্প বাস্তবায়ন আগামিতে আরো অব্যাহত থাকবে ।